1. admin@hrmbangladesh.com : hrmsonia :
HRM Bangladesh। Best HR Professional Service in Bangladesh
বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৪৯ অপরাহ্ন

চাপের মধ্যেও ভালো কাজ করার কৌশল

Reporter
  • Update Time : রবিবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৩৫৬ Time View
office stress, workplace stress, কাজের চাপ;
office stress, workplace stress, কাজের চাপ;

বর্তমান সময়ের বাস্তবতা এটাই যে বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানই প্রয়োজনের তুলনায় কমসংখ্যক কর্মী নিয়োগ দিচ্ছে। কারণ, সব প্রতিষ্ঠানই চাচ্ছে খরচ কমিয়ে রাখতে। একজন কর্মী নিয়োগ দিলে তাঁর পেছনে প্রতি মাসে প্রতিষ্ঠানের ব্যয় হয়। যেহেতু কাজের পরিমাণের তুলনায় কর্মীসংখ্যা কম থাকে, তাই বেশির ভাগ কর্মক্ষেত্রেই একজন কর্মীকে বাড়তি চাপ নিয়ে কাজ করতে হয়।

তাই এখন প্রায় প্রতিটি চাকরির বিজ্ঞপ্তিতে যে কথাটি দেখা যায়, তা হচ্ছে চাপের মধ্যেও ভালো কাজ করার ক্ষমতা থাকতে হবে। শুধু যে চাকরির বিজ্ঞপ্তির মধ্যেই এ কথা থাকে, তা–ই নয়, চাকরির সাক্ষাৎকারের সময়ও প্রশ্নটি গুরুত্বের সঙ্গে জিগ্যেস করা হয়। আসলে প্রতিটি প্রতিষ্ঠানই এমন কর্মী নিয়োগ দিতে চায়, যাঁরা চাপের মধ্যেও ভালো মানের কাজ করতে পারেন।

তবে চাপের মধ্যে ভালো কাজ করার দক্ষতা অর্জন করতে হলে এর সঙ্গে প্রাসঙ্গিক আরও কিছু দক্ষতা অর্জনের প্রয়োজন পড়ে। যেমন দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা, সময় ব্যবস্থাপনা, দ্রুত সমস্যার সমাধানের ক্ষমতা ইত্যাদি। মাল্টিটাস্কিং বা একসঙ্গে একাধিক কাজ করতে পারার চর্চা করতে হয়।

চাপের মধ্যে ভালো কাজ করার দক্ষতা তৈরির উপায়—

১। কাজের তালিকা তৈরি করুন এবং কাজকে ছোট ছোট ভাগে বিভক্ত করুন

আপনার প্রোজেক্টের জন্য যে যে কাজ করতে হবে, তার একটি তালিকা তৈরি করুন এবং পুরো কাজটিকে ছোট ছোট ভাগে বিভক্ত করুন। অপ্রয়োজনীয় কোনো কাজ বাদ দেওয়ার সুযোগ থাকলে বাদ দিয়ে দিন। যখন আপনি পুরো কাজটিকে ছোট ছোট ভাগে বিভক্ত করবেন, তখন প্রতিটি ছোট অংশ আলাদাভাবে গুরুত্ব পাবে এবং কম সময়ে সুসম্পন্ন করা যাবে।

২। বেশি গুরুত্বপূর্ণ কাজকে অগ্রাধিকার দিন

আপনি যখন আপনার পুরো প্রজেক্টের কাজের তালিকা তৈরি করবেন, তখন এমন কিছু কাজ থাকবে, যা করা আপনার জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সেই বেশি গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলোর প্রতি বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখুন এবং সেই কাজগুলো অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে সুসম্পন্ন করুন।

আপনার কাজগুলোকে তিনটি ভাগে ভাগ করে নিতে পারেন। প্রথমত, কাজটি গুরুত্বপূর্ণ এবং এখনই করা উচিত। দ্বিতীয়ত, কাজটি গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু এখন না করলেও সমস্যা নেই এবং তৃতীয়ত, কাজটি খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, সময় থাকলে পরে করা যেতে পারে।

৩। মাথা ঠান্ডা রেখে গুছিয়ে কাজ করুন

অনেকেই চাপের মধ্যে কাজ করতে যেয়ে মাথা গরম করে ফেলেন এবং পুরো কাজটিকে হযবরল করে ফেলেন বা গুলিয়ে ফেলেন। কিন্তু তা করলে ভালোর পরিবর্তে আরও খারাপ হবে। তাই কাজের চাপ চলাকালীন অবস্থায় মাথা ঠান্ডা রাখতে হবে এবং নজর রাখতে হবে, যেন প্রতিটি কাজ গোছানো হয়।

৪। নিজের যত্ন নিন এবং পর্যাপ্ত বিশ্রাম ও ঘুম নিশ্চিত করুন

চাপের মধ্যে কাজ করার সময় নিজের যত্ন নিতে হবে। খাবার ঠিকমতো খেতে হবে। শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের দিকেও নজর রাখতে হবে। মনে রাখতে হবে, স্বাস্থ্য ও মন—এ দুটির যেকোনো একটিও খারাপ হলে আপনার পক্ষে চাপ সামলে কাজ করা কঠিন হবে। তাই নিজের প্রতি যত্ন নিতে হবে এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রাম ও ঘুম নিশ্চিত করতে হবে।

আরেকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে যে বিশ্রামের সময় কাজের কথা না ভাবাই ভালো। এতে আপনার বিশ্রাম বা ঘুমের ব্যাঘাত ঘটবে, যা পরের দিন আপনার কাজের ওপর বাজে প্রভাব ফেলবে। তাই চেষ্টা করুন বিশ্রামের সময় কাজের কথা না ভেবে একটি পরিপূর্ণ বিশ্রাম বা ঘুম নিশ্চিত করতে।

চাকরির সাক্ষাৎকারে চাপের মধ্যে কাজ করতে পারেন কি না, এ প্রশ্নের উত্তর কী হওয়া উচিত

চাকরির সাক্ষাৎকারে চাপের মধ্যে কাজ করতে পারার প্রশ্নটির সন্তোষজনক উত্তর দিতে পারলে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যেতে পারে। ইন্টারভিউ বোর্ডে সাধারণভাবে উত্তর না দিয়ে পুরো বিষয়টি বর্ণনা করে সুনির্দিষ্টভাবে প্রশ্নটির উত্তর দিতে পারেন। আপনি উত্তরটিকে তিনটি ভাগে ভাগ করে নিতে পারেন।


১। পরিস্থিতি বর্ণনা

আপনি প্রথমেই এমন একটি পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করতে পারেন, যখন আপনাকে অনেক চাপের মধ্য দিয়েও নির্ধারিত সময়ে একটি কাজ শেষ করতে হয়েছিল।

যেমন ধরুন, আপনি যখন আপনার টিম নিয়ে নির্ধারিত সময়ে কোনো একটি প্রজেক্ট শেষ করতে চাচ্ছিলেন, ঠিক ওই সময় আপনার টিমের দুই সদস্যের দুর্ঘটনা ঘটেছিল। ফলে আপনার টিমের দুই সদস্য উপস্থিত থাকতে পারেননি। কিন্তু তারপরও নির্ধারিত সময়ে ওই প্রজেক্ট সুসম্পন্ন করতে আপনাকে অতিরিক্ত চাপ মাথায় নিয়ে কাজ করতে হয়েছিল।

২। আপনার ভূমিকা ও গৃহীত পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করুন

এই অংশে পুরো কাজটি সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে আপনি ব্যক্তিগতভাবে কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পেরেছিলেন এবং কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন, তা সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করুন। কারণ, এ অংশ থেকেই বোঝা যাবে, কঠিন পরিস্থিতি সামলানোর ক্ষেত্রে আপনি নিজে কতটা দায়িত্বশীল এবং নিজে কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য কতটা উপযুক্ত।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, আপনি কম সদস্য নিয়েও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রজেক্টটি শেষ করার জন্য পরিকল্পনায় কিছু পরিবর্তন এনেছিলেন এবং সময়ের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করেছিলেন। কাজ দ্রুত সুসম্পন্ন করার জন্য প্রযুক্তিগত কিছু সহায়তা নিয়েছিলেন এবং সিনিয়রদের সঙ্গে কথা বলে কাজটিকে আরও সুশৃঙ্খল করেছিলেন।

এখানে উল্লেখ করতে পারেন, টিম লিডার হিসেবে আপনি একাধারে যেমন পুরো প্রোজেক্টটি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দ্রুত শেষ করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছিলেন, তার পাশাপাশি টিমের প্রত্যেক সদস্যকে উজ্জীবিত রাখার মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজটিও আপনি করেছিলেন। এভাবে পরিস্থিতি অনুযায়ী নিজের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণভাবে উপস্থাপন করতে পারেন।


৩। ফলাফল উল্লেখ করুন

আপনি প্রথম পর্যায়ে পরিস্থিতি উল্লেখ করেছেন এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে আপনার ভূমিকা ও গৃহীত পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করেছেন। এ পর্যায়ে আপনার গৃহীত পদক্ষেপের ফলে কী ফলাফল হয়েছিল, তা উল্লেখ করতে হবে।

আপনি যদি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রজেক্ট শেষ করে থাকেন, তা এখানে উল্লেখ করুন। এ প্রজেক্ট থেকে আপনি কী শিখেছিলেন, সেটিও উল্লেখ করতে পারেন। সেই শিক্ষা পরবর্তীকালে আপনি অন্য প্রোজেক্ট সফলভাবে সুসম্পন্ন করতে কীভাবে কাজে লাগিয়েছিলেন, তা–ও উল্লেখ করতে পারেন।

তাহলে বুঝা যাবে যে আপনি চাপের মধ্যে ভালো কাজ করতে পারেন এবং আপনি কঠিন পরিস্থিতি থেকে শিক্ষা গ্রহণ করেন এবং সেই শিক্ষা পরবর্তীকালে আপনার অন্যান্য কাজেও প্রয়োগ করেন। সর্বোপরি আপনার সম্পর্কে নিয়োগকর্তার একটি ভালো ধারণা তৈরি হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved And Copyright Protected © 2022 HRM Bangladesh
Developed By HRM Bangladesh
error: Do Not Try To Copy. All Content is Protected by Law. Its a Punishable Offence !!